আজ ২৫ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখ সকাল সাড়ে ১০ টায় সাভারের রানা প্লাজার সামনে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন কর্মসূচিতে।

0
10
আজ ২৫ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখ সকাল সাড়ে ১০ টায় সাভারের রানা প্লাজার সামনে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন কর্মসূচিতে।

অবিলম্বে সোহেল রানাসহ সকল দোষীদের এবং সুমন হত্যার বিচারের দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত
“দেশে গণতন্ত্র না র্থাকলে ইনসাফ থাকে না”
তাসলিমা আখ্তার

“রানা প্লাজা ধসের ৬৯তম মাস অতিবাহিত হয়েছে গতকাল ২৪ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখে। বাংলাদেশ গার্মেন্টস শ্রমিক সংহতি বরাবরের মতো এবারেও সোহেল রানার বিচারের দাবিতে দাঁড়িয়েছে রানা প্লাজার সামনে। এমাসে আমরা সোহেল রানার বিচারের পাশাপাশি মজুরি সমন্বয়ের দাবিতে গড়ে ওঠা শ্রমিক আন্দোলনে পুলিশের গুলিতে নিহত সুমন মিয়া হত্যার বিচারের দাবিতেও দাঁড়িয়েছি আজকে।” বাংলাদেশ গার্মেন্ট শ্রমিক সংহতির সভাপ্রধান তাসলিমা আখতার এসব কথা বলেন আজ ২৫ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখ সকাল সাড়ে ১০ টায় সাভারের রানা প্লাজার সামনে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন কর্মসূচিতে।
তাসলিমা আখতার তার বক্তৃতায় আরো বলেন, “গত ৩০ ডিসেম্বর প্রহসনের নির্বাচনের ভেতর দিয়ে ক্ষমতায় এসেছে বর্তমান সরকার। গত ১০ বছর ধরে বর্তমান সরকার ক্ষমতায় থেকে উন্নয়নের নামে গণতন্ত্রকে কবর দিয়েছে। আর যে দেশে গণতন্ত্র থাকে না সে দেশে ইনসাফ থাকতে পারে না। ফলে প্রায় ১২শ শ্রমিকের হত্যাকারীদের বেশিরভাগ জামিনে বের হয়ে গেছে। বিচার প্রক্রিয়া ঝুলে গেছে। শ্রমিকরা তাদের ন্যায্য দাবিতে আন্দোলনে নামলে গুলি কওে হত্যা করা হচ্ছে, মামলা দেয়া হচ্ছে হাজার হাজার শ্রমিকের নামে। শত শত শ্রমিককে ছাঁটাই করে অনিশ্চিত জীবনের দিকে ঠেলে দেয়া হয়েছে। এই অগণতান্ত্রিক সরকারের বিরুদ্ধে প্রথম বিদ্রোহ ঘোষণা করেছে গার্মেন্ট শ্রমিকরাই। ফলে রাজপথ রঞ্জিত হয়েছে শ্রমিকের রক্তেই। এই শ্রমিকের ঐক্যবদ্ধ সংগ্রামই পারে বেইনসাফি দূর করে গণতন্ত্রের পথে এগিয়ে যেতে।”
আজাকের মানববন্ধন কর্মসূচিতে আরো বক্তব্য দেন, সংগঠনের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক জুলহাসনাইন বাবু, সাংগঠনিক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম শামা, কেন্দ্রীয় সদস্য প্রবীর সাহা। আরো বক্তব্য দেন রানা প্লাজায় নিহত শ্রমিক ফজলে রাব্বির মা রাহেলা বেগম, রানা প্লাজার আহত শ্রমিক রূপালী আক্তার। সভাপত্বি করেন সাভার শাখার সংগঠক শাহ আলম।