জলিল মালকে রিমান্ডে নিলেই শিলাইদহ কুঠিবাড়ির তরবারি ও মীরের সিন্দুকের সন্ধান মিলবে!

0
20
জলিল মালকে রিমান্ডে নিলেই শিলাইদহ কুঠিবাড়ির তরবারি ও মীরের সিন্দুকের সন্ধান মিলবে!

জলিল মালকে রিমান্ডে নিলেই শিলাইদহ কুঠিবাড়ির
তরবারি ও মীরের সিন্দুকের সন্ধান মিলবে!

আরশীনগর প্রতিবেদক \ কুষ্টিয়ার কুমারখালীর শিলাইদহে কুঠিবাড়ির চুরি যাওয়া দু’টি তরবারি ও অমর কথাসাহিত্যিক মীর মশাররফ হোসেনের চুরি যাওয়া সিন্দুকের সন্ধান আজও মেলেনি। জিডি হয়েছে, হয়েছে একের পর এক তদন্ত। আজও এর কুল কিনারা মেলেনি। কুষ্টিয়ায় রাতারাতি গজিয়ে ওঠা একটি সংগঠনের নামের আগে অন্য একটি দেশের নাম ব্যবহার করে তারা সেদেশের কতিপয় ব্যক্তির তুষ্টি লাভের আশায় শিলাইদহ ও লাহিনীপাড়ায় চুরি যাওয়া তরবারি ও সিন্দুক পাচার করেছে বলে বিভিন্নভাবে ধারনা করা হচ্ছে। কারণ চুরি হওয়ার আগে জলিল মাল কথিত সংগঠনের আস্তানায় অপরিচিত ও রহস্যজনক মানুষের আনাগোনা দেখা যায় বলে এলাকাবাসী জানায়। যে কোন বিদেশী নাগরিক এসে কোন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে হলে তাকে অবশ্যই সেই দেশের দূতাবাসের মাধ্যমে আসার বিধান থাকলেও জলিল মালের আস্তানায় অহরহ বিদেশী নাগরিকরা যাচ্ছে, আসছে এবং থাকছে। এ বিষয়ে প্রশাসনের কাছেও কোন তথ্য আছে বলে জানা যায়নি।
বাউল স¤্রাট ফকির লালন সাঁইজি সারাজীবন জীর্ণ কুটিরে থেকে মানবতার জয়গান প্রচার করলেও জলিল মাল পিতার টাইটেল মাল বাদ দিয়ে নিজের নামের সাধে ফকির সংযুক্ত করেছে। অথচ তার আচার, আচরণ, চটকদারি কথাবার্তা, পরশ্রীকাতর, উচ্চাভিলাষী, প্রতিশোধ পরায়নতা কোন কিছুই বাউল ধর্মের সাথে মিলে না। তার পরিষদের ভবনে এসি সংযোগ, টাইলস, আধুনিক বাথরুম ফিটিংস দেখে মনে হয় না এটি কোন বাউলের আস্তানা। যে কেউ বলবে পুরাতন দিনের রাজা বাদশা’র জলসাঘর। মাত্র ক’দিন আগেও যে জলিল মালের নুন আনতে পান্তা ফুরায় অবস্থা অথচ বর্তমানে আঙুল ফুলে কলাগাছ হওয়ার পেছনে রহস্য কি? তা নিয়ে জনমনে দেখা দিয়েছে নানা প্রশ্ন। কুঠিবাড়ি থেকে চুরি যাওয়া শতবর্ষের পুরাতন তরবারি এবং লাহিনীপাড়া থেকে মীরের চুরি যাওয়া সিন্দুকের প্রতœতাত্মিক মুল্য শতকোটি টাকা। তার পর থেকেই তার বিলাসিতার বহি:প্রকাশ দেখা যায়। অপরাধ বিশেষজ্ঞরা ধারণা করছেন এটি বিদেশী গুপ্তচরদের আস্তানাও হতে পারে। যার বিনিময়ে সে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। এছাড়াও বিশেষজ্ঞরা চুরি যাওয়া মালের সাথে জলিল মালের হঠাৎ ফুলে ফেঁপে ওঠার পেছনে কোন কানেকশন আছে কি-না তা খতিয়ে দেখতে সরকারের দায়িত্বশীল কর্তাব্যক্তিদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।
কুষ্টিয়া শহরতলীর জুগিয়া গ্রামে নানা অপকর্ম আর অনৈতিক কর্মকান্ডের জন্য এলাকাবাসীর কাছে গণপিটুনি খেয়ে এলাকাছাড়া হয়ে ছেঁউড়িয়ার এই আধুনিক রংমহলে অবস্থান করছেন জলিল মাল। তার আয়ের উৎস, চলফেরার গতিবিধি, দেশী-বিদেশী গোপন কানেকশন সবকিছুই খতিয়ে দেখছে একাধিক গোয়েন্দা সংস্থাসহ গণমাধ্যমকর্মীরা।