জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াসহ অন্য আসামিদের সাজার বিচারিক আদালতের নথিপত্র আজ রোববার দুপুরে হাইকোর্টে পৌঁছেছে।

0
15
জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াসহ অন্য আসামিদের সাজার বিচারিক আদালতের নথিপত্র আজ রোববার দুপুরে হাইকোর্টে পৌঁছেছে।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াসহ অন্য আসামিদের সাজার বিচারিক আদালতের নথিপত্র আজ রোববার দুপুরে হাইকোর্টে পৌঁছেছে। আদালত সূত্রে জানা গেছে এ তথ্য।

আজ হাইকোর্টে খালেদা জিয়ার জামিনের বিষয়ে আদেশের দিন ধার্য ছিল। তবে নিম্ন আদালত থেকে রায়ের মূল নথি না আসায় খালেদা জিয়ার জামিনের বিষয়ে আজ আদেশ হয়নি। আদালত আগামীকাল সোমবার বেলা দুইটার দিকে আদেশের জন্য দিন ধার্য করেছেন।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছর এবং বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ পাঁচজনকে ১০ বছর কারাদণ্ড দেন আদালত। এরপর থেকে খালেদা জিয়া পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডের সাবেক কেন্দ্রীয় কারাগারে আছেন।

রায়ের পর অনুলিপি পাওয়ার জন্য আদালতে আবেদন করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। গত ১৯ ফেব্রুয়ারি আদালত রায়ের অনুলিপি দেন। পরে বিচারিক আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করেন খালেদা জিয়া। ২৫ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের ওপর শুনানি শেষ হয়। বিচারিক আদালতের নথি আসার পর আদেশ দেওয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানান, বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ।

মামলার অপর চার আসামি হলেন সাবেক মুখ্য সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী, সাবেক সাংসদ ও ব্যবসায়ী কাজী সালিমুল হক কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ ও জিয়াউর রহমানের ভাগনে মমিনুর রহমান।

আসামিদের মধ্যে পলাতক রয়েছেন তারেক রহমান, কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও মমিনুর রহমান।

এতিমদের সহায়তা করার উদ্দেশ্যে বিদেশ থেকে পাঠানো ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা ক্ষমতার অপব্যবহার করে দুর্নীতির মাধ্যমে আত্মসাতের অভিযোগে খালেদা জিয়া, তারেক রহমানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই দুর্নীতি দমন কমিশন এই মামলা করে।