মে দিবসে বিভিন্ন দাবিতে কুষ্টিয়া জেলা বাস মিনিবাস কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের র‌্যালি ও সমাবেশ

0
35
মে দিবসে বিভিন্ন দাবিতে কুষ্টিয়া জেলা বাস মিনিবাস কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের র‌্যালি ও সমাবেশ

মে দিবসে বিভিন্ন দাবিতে কুষ্টিয়া জেলা বাস মিনিবাস কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের র‌্যালি ও সমাবেশ
পরিবহন শ্রমিকদের স্বার্থবিরোধী কালো আইন অবিলম্বে প্রত্যাহার করতে হবে ….. মোকাদ্দেস হোসেন
নিজস্ব প্রতিবেদক \ পৃথিবীর সব শ্রমিকের লড়াই-সংগ্রাম-পরিশ্রমের প্রতি সম্মান, শ্রদ্ধা ও তাঁদের আত্মত্যাগের পূণ্যস্মৃতির উদ্দেশ্যে মহান মে দিবসে পরিবহন শ্রমিকদের বিভিন্ন দাবি আদায়ের লক্ষে কুষ্টিয়ায় র‌্যালী ও সমাবেশ করেছে জেলা বাস মিনিবাস কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়ন- খুলনা ৭২( সাবেক কুষ্টিয়া জেলা মটর শ্রমিক ইউনিয়ন)। গতকাল সকালে কুষ্টিয়া বনানী হল গলি থেকে শুরু হয়ে র‌্যালীটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে মজমপুর গেটে সমাবেশের মধ্যে দিয়ে শেষ হয়। মহান মে দিবসের সকল কর্মসূচীতে সভাপতিত্ব করেন, অত্র ইউনিয়নের সভাপতি মাহাবুল আলম। প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন, কুষ্টিয়া জেলা বাস মিনিবাস কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক মোকাদ্দেস হোসেন। প্রধান বক্তা বলেন, বিশ্বের কোটি কোটি শ্রমজীবী মানুষের অধিকার ও দাবি আদায়ের মহান মে দিবস আজ। বিশ্বব্যাপী শ্রমজীবী মানুষের আন্দোলন-সংগ্রামে অনুপ্রেরণার উৎস এই দিন। মালিক-শ্রমিক সুসম্পর্ক প্রতিষ্ঠা আর শ্রমিকদের শোষণ-বঞ্চনার অবসান ঘটার স্বপ্ন দেখারও দিন এটি। ঐতিহাসিক এ দিনটিকে পুরো বিশ্বজুড়ে শ্রমিকরা যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করছেন। ১৮৮৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো শহরের হে মার্কেটের শ্রমিকরা উপযুক্ত মজুরি এবং দৈনিক আট ঘণ্টা কাজের দাবিতে ব্যাপক আন্দোলন গড়ে তুলেন। তৎকালীন কল-কারখানা তখন গিলে খাচ্ছিল শ্রমিকের গোটা জীবন। অসহনীয় পরিবেশে ১৬ ঘণ্টা প্রতিদিন কাজ করতে হতো। সপ্তাহে ছয় দিন কাজ করে শ্রমিকের স্বাস্থ্য একেবারে ভেঙে যাচ্ছিল। শ্রমজীবী শিশুরা হয়ে পড়েছিল কঙ্কালসার। তখন দাবি উঠেছিল, কল-কারখানায় শ্রমিকের গোটা জীবন কিনে নেয়া যাবে না। এই দাবিতে শুরু হওয়া আন্দোলনের সময় ওই বছরের ১লা মে শ্রমিকরা ধর্মঘট আহŸান করেন। প্রায় ৩ লাখ মেহনতি মানুষ ওই সমাবেশে অংশ নেন। একপর্যায়ে আন্দোলনরত ক্ষুব্ধ শ্রমিকদের রুখতে পুলিশ এলোপাতাড়ি গুলি চালায় মিছিলে। পুলিশের গুলিতে বহু শ্রমিক হতাহত হন। সেখান থেকে পাল্টে যেতে থাকে শ্রমিকের কর্মঘন্টা মালিকেরা কর্মঘন্টা ৮ ঘন্টা মেনে নিতে বাধ্য হয়। তিনি আরো বলেন, পরিবহন শ্রমিকদের কোন কর্মঘন্টা নেই। পরিবহন শ্রমিক ভাইদের কাজের কোন সময় বাধা থাকে না এবং অতিরিক্ত সময় কাজ করলে তার জন্য অতিরিক্ত শ্রমের মুল্য পরিশোধ করা হয়না। এদিকে সরকার পরিবহন শ্রমিকদের উপর একটি কালো আইন তৈরি করে দিয়েছে যে আইনে শ্রমিকের কোন স্বার্থ নেই। অবিলম্বে এই কালো আইন বাতিল করে শ্রমিকের নায্য দাবি আদায়ে আইন করা হোক। সভাপতি মাহাবুল আলম বলেন, মহান মে দিবস শ্রমিকদের অধিকার আদায়ের দিন। এই দিনে শ্রমিক ভাইয়েরা তাদের দাবি আদায় করতে যেয়ে রাজ পথে বুকেরতাজা রক্ত দিয়েছে। আমরা তাদের শ্রদ্ধাভারে স্বরন করি। মহান মে দিবস সফল ও স্বার্থক করায় সকল শ্রমিক ভাই ও নেতৃবৃন্দকে জানাই অভিনন্দন। এসময় বক্তব্য রাখেন, কুষ্টিয়া জেলা বাস মিনিবাস কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের কার্যকরী সভাপতি, আব্দুল হামিদ মুকুল, সহ সভাপতি, আব্দুর রাজ্জাক, যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক নজরুল ইসলাম ডাবলু, সাংগঠনিক সম্পাদক সরোয়ার হোসেন, কোষাধ্যক্ষ রবিউল ইসলাম, প্রচার সম্পাদক আনিচুর রহমান আনিচসহ সংগঠনের সাবেক নেতৃবৃন্দ।

মে দিবসে বিভিন্ন দাবিতে কুষ্টিয়া জেলা বাস মিনিবাস কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের র‌্যালি ও সমাবেশ
পরিবহন শ্রমিকদের স্বার্থবিরোধী কালো আইন অবিলম্বে প্রত্যাহার করতে হবে ….. মোকাদ্দেস হোসেন
নিজস্ব প্রতিবেদক \ পৃথিবীর সব শ্রমিকের লড়াই-সংগ্রাম-পরিশ্রমের প্রতি সম্মান, শ্রদ্ধা ও তাঁদের আত্মত্যাগের পূণ্যস্মৃতির উদ্দেশ্যে মহান মে দিবসে পরিবহন শ্রমিকদের বিভিন্ন দাবি আদায়ের লক্ষে কুষ্টিয়ায় র‌্যালী ও সমাবেশ করেছে জেলা বাস মিনিবাস কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়ন- খুলনা ৭২( সাবেক কুষ্টিয়া জেলা মটর শ্রমিক ইউনিয়ন)। গতকাল সকালে কুষ্টিয়া বনানী হল গলি থেকে শুরু হয়ে র‌্যালীটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে মজমপুর গেটে সমাবেশের মধ্যে দিয়ে শেষ হয়। মহান মে দিবসের সকল কর্মসূচীতে সভাপতিত্ব করেন, অত্র ইউনিয়নের সভাপতি মাহাবুল আলম। প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন, কুষ্টিয়া জেলা বাস মিনিবাস কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক মোকাদ্দেস হোসেন। প্রধান বক্তা বলেন, বিশ্বের কোটি কোটি শ্রমজীবী মানুষের অধিকার ও দাবি আদায়ের মহান মে দিবস আজ। বিশ্বব্যাপী শ্রমজীবী মানুষের আন্দোলন-সংগ্রামে অনুপ্রেরণার উৎস এই দিন। মালিক-শ্রমিক সুসম্পর্ক প্রতিষ্ঠা আর শ্রমিকদের শোষণ-বঞ্চনার অবসান ঘটার স্বপ্ন দেখারও দিন এটি। ঐতিহাসিক এ দিনটিকে পুরো বিশ্বজুড়ে শ্রমিকরা যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করছেন। ১৮৮৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো শহরের হে মার্কেটের শ্রমিকরা উপযুক্ত মজুরি এবং দৈনিক আট ঘণ্টা কাজের দাবিতে ব্যাপক আন্দোলন গড়ে তুলেন। তৎকালীন কল-কারখানা তখন গিলে খাচ্ছিল শ্রমিকের গোটা জীবন। অসহনীয় পরিবেশে ১৬ ঘণ্টা প্রতিদিন কাজ করতে হতো। সপ্তাহে ছয় দিন কাজ করে শ্রমিকের স্বাস্থ্য একেবারে ভেঙে যাচ্ছিল। শ্রমজীবী শিশুরা হয়ে পড়েছিল কঙ্কালসার। তখন দাবি উঠেছিল, কল-কারখানায় শ্রমিকের গোটা জীবন কিনে নেয়া যাবে না। এই দাবিতে শুরু হওয়া আন্দোলনের সময় ওই বছরের ১লা মে শ্রমিকরা ধর্মঘট আহŸান করেন। প্রায় ৩ লাখ মেহনতি মানুষ ওই সমাবেশে অংশ নেন। একপর্যায়ে আন্দোলনরত ক্ষুব্ধ শ্রমিকদের রুখতে পুলিশ এলোপাতাড়ি গুলি চালায় মিছিলে। পুলিশের গুলিতে বহু শ্রমিক হতাহত হন। সেখান থেকে পাল্টে যেতে থাকে শ্রমিকের কর্মঘন্টা মালিকেরা কর্মঘন্টা ৮ ঘন্টা মেনে নিতে বাধ্য হয়। তিনি আরো বলেন, পরিবহন শ্রমিকদের কোন কর্মঘন্টা নেই। পরিবহন শ্রমিক ভাইদের কাজের কোন সময় বাধা থাকে না এবং অতিরিক্ত সময় কাজ করলে তার জন্য অতিরিক্ত শ্রমের মুল্য পরিশোধ করা হয়না। এদিকে সরকার পরিবহন শ্রমিকদের উপর একটি কালো আইন তৈরি করে দিয়েছে যে আইনে শ্রমিকের কোন স্বার্থ নেই। অবিলম্বে এই কালো আইন বাতিল করে শ্রমিকের নায্য দাবি আদায়ে আইন করা হোক। সভাপতি মাহাবুল আলম বলেন, মহান মে দিবস শ্রমিকদের অধিকার আদায়ের দিন। এই দিনে শ্রমিক ভাইয়েরা তাদের দাবি আদায় করতে যেয়ে রাজ পথে বুকেরতাজা রক্ত দিয়েছে। আমরা তাদের শ্রদ্ধাভারে স্বরন করি। মহান মে দিবস সফল ও স্বার্থক করায় সকল শ্রমিক ভাই ও নেতৃবৃন্দকে জানাই অভিনন্দন। এসময় বক্তব্য রাখেন, কুষ্টিয়া জেলা বাস মিনিবাস কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের কার্যকরী সভাপতি, আব্দুল হামিদ মুকুল, সহ সভাপতি, আব্দুর রাজ্জাক, যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক নজরুল ইসলাম ডাবলু, সাংগঠনিক সম্পাদক সরোয়ার হোসেন, কোষাধ্যক্ষ রবিউল ইসলাম, প্রচার সম্পাদক আনিচুর রহমান আনিচসহ সংগঠনের সাবেক নেতৃবৃন্দ।

মে দিবসে বিভিন্ন দাবিতে কুষ্টিয়া জেলা বাস মিনিবাস কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের র‌্যালি ও সমাবেশ
পরিবহন শ্রমিকদের স্বার্থবিরোধী কালো আইন অবিলম্বে প্রত্যাহার করতে হবে ….. মোকাদ্দেস হোসেন
নিজস্ব প্রতিবেদক \ পৃথিবীর সব শ্রমিকের লড়াই-সংগ্রাম-পরিশ্রমের প্রতি সম্মান, শ্রদ্ধা ও তাঁদের আত্মত্যাগের পূণ্যস্মৃতির উদ্দেশ্যে মহান মে দিবসে পরিবহন শ্রমিকদের বিভিন্ন দাবি আদায়ের লক্ষে কুষ্টিয়ায় র‌্যালী ও সমাবেশ করেছে জেলা বাস মিনিবাস কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়ন- খুলনা ৭২( সাবেক কুষ্টিয়া জেলা মটর শ্রমিক ইউনিয়ন)। গতকাল সকালে কুষ্টিয়া বনানী হল গলি থেকে শুরু হয়ে র‌্যালীটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে মজমপুর গেটে সমাবেশের মধ্যে দিয়ে শেষ হয়। মহান মে দিবসের সকল কর্মসূচীতে সভাপতিত্ব করেন, অত্র ইউনিয়নের সভাপতি মাহাবুল আলম। প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন, কুষ্টিয়া জেলা বাস মিনিবাস কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক মোকাদ্দেস হোসেন। প্রধান বক্তা বলেন, বিশ্বের কোটি কোটি শ্রমজীবী মানুষের অধিকার ও দাবি আদায়ের মহান মে দিবস আজ। বিশ্বব্যাপী শ্রমজীবী মানুষের আন্দোলন-সংগ্রামে অনুপ্রেরণার উৎস এই দিন। মালিক-শ্রমিক সুসম্পর্ক প্রতিষ্ঠা আর শ্রমিকদের শোষণ-বঞ্চনার অবসান ঘটার স্বপ্ন দেখারও দিন এটি। ঐতিহাসিক এ দিনটিকে পুরো বিশ্বজুড়ে শ্রমিকরা যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করছেন। ১৮৮৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো শহরের হে মার্কেটের শ্রমিকরা উপযুক্ত মজুরি এবং দৈনিক আট ঘণ্টা কাজের দাবিতে ব্যাপক আন্দোলন গড়ে তুলেন। তৎকালীন কল-কারখানা তখন গিলে খাচ্ছিল শ্রমিকের গোটা জীবন। অসহনীয় পরিবেশে ১৬ ঘণ্টা প্রতিদিন কাজ করতে হতো। সপ্তাহে ছয় দিন কাজ করে শ্রমিকের স্বাস্থ্য একেবারে ভেঙে যাচ্ছিল। শ্রমজীবী শিশুরা হয়ে পড়েছিল কঙ্কালসার। তখন দাবি উঠেছিল, কল-কারখানায় শ্রমিকের গোটা জীবন কিনে নেয়া যাবে না। এই দাবিতে শুরু হওয়া আন্দোলনের সময় ওই বছরের ১লা মে শ্রমিকরা ধর্মঘট আহŸান করেন। প্রায় ৩ লাখ মেহনতি মানুষ ওই সমাবেশে অংশ নেন। একপর্যায়ে আন্দোলনরত ক্ষুব্ধ শ্রমিকদের রুখতে পুলিশ এলোপাতাড়ি গুলি চালায় মিছিলে। পুলিশের গুলিতে বহু শ্রমিক হতাহত হন। সেখান থেকে পাল্টে যেতে থাকে শ্রমিকের কর্মঘন্টা মালিকেরা কর্মঘন্টা ৮ ঘন্টা মেনে নিতে বাধ্য হয়। তিনি আরো বলেন, পরিবহন শ্রমিকদের কোন কর্মঘন্টা নেই। পরিবহন শ্রমিক ভাইদের কাজের কোন সময় বাধা থাকে না এবং অতিরিক্ত সময় কাজ করলে তার জন্য অতিরিক্ত শ্রমের মুল্য পরিশোধ করা হয়না। এদিকে সরকার পরিবহন শ্রমিকদের উপর একটি কালো আইন তৈরি করে দিয়েছে যে আইনে শ্রমিকের কোন স্বার্থ নেই। অবিলম্বে এই কালো আইন বাতিল করে শ্রমিকের নায্য দাবি আদায়ে আইন করা হোক। সভাপতি মাহাবুল আলম বলেন, মহান মে দিবস শ্রমিকদের অধিকার আদায়ের দিন। এই দিনে শ্রমিক ভাইয়েরা তাদের দাবি আদায় করতে যেয়ে রাজ পথে বুকেরতাজা রক্ত দিয়েছে। আমরা তাদের শ্রদ্ধাভারে স্বরন করি। মহান মে দিবস সফল ও স্বার্থক করায় সকল শ্রমিক ভাই ও নেতৃবৃন্দকে জানাই অভিনন্দন। এসময় বক্তব্য রাখেন, কুষ্টিয়া জেলা বাস মিনিবাস কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের কার্যকরী সভাপতি, আব্দুল হামিদ মুকুল, সহ সভাপতি, আব্দুর রাজ্জাক, যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক নজরুল ইসলাম ডাবলু, সাংগঠনিক সম্পাদক সরোয়ার হোসেন, কোষাধ্যক্ষ রবিউল ইসলাম, প্রচার সম্পাদক আনিচুর রহমান আনিচসহ সংগঠনের সাবেক নেতৃবৃন্দ।