৫০তম ইউনূস সেন্টারের উদ্বোধন হলো দিল্লীর অশোকা বিশ্ববিদ্যালয়ে

0
17
৫০তম ইউনূস সেন্টারের উদ্বোধন হলো দিল্লীর অশোকা বিশ্ববিদ্যালয়ে

৫০তম ইউনূস সেন্টারের উদ্বোধন হলো দিল্লীর অশোকা বিশ্ববিদ্যালয়ে

ভারতের অশোকা বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি ইউনূস সোশ্যাল বিজনেস সেন্টার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ইউনূস সেন্টারের সাথে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করলো বিশ্ববিদ্যালয়টি। নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস তাঁর সাম্প্রতিক ভারত সফরের সময়ে ৬ এপ্রিল ২০১৮ ইউনূস সেন্টারের পক্ষে এই সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেন। নিজ নিজ ক্যাম্পাসে ইউনূস সোশ্যাল বিজনেস সেন্টার প্রতিষ্ঠা করতে ইউনূস সেন্টারের সাথে পৃথিবীর যে সকল বিশ্ববিদ্যালয় চুক্তি স্বাক্ষর করেছে অশোকা তাদের মধ্যে ৫০তম। অন্য ৪৯টি ইউনূস সেন্টার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে পৃথিবীর ২৮টি দেশে। সামাজিক লক্ষ্য নিয়ে বিশ্বমানের শিক্ষাদানের উদ্দেশ্যে প্রতিষ্ঠিত হয় এই প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়টি। ইউনূস সোশ্যাল বিজনেস সেন্টারটির একটি অন্যতম কাজ হবে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠক্রমে সামাজিক ব্যবসা ও তার চর্চাকে অন্তভর্‚ক্ত করা। বিশ্বব্যাপী সামাজিক ব্যবসার উন্নয়ন ও প্রসার পর্যালোচনা এবং এ নিয়ে চিন্তা-ভাবনা করতে প্রতি বছর সামাজিক ব্যবসা অ্যাকাডেমিয়া নেটওয়ার্ককে কেন্দ্র করে দু’টি আন্তর্জাতিক অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়ে থাকে।

প্রফেসর ইউনূস “বিশ্বকে পরিবর্তনে শিক্ষার ভ‚মিকা” শিরানোমে একটি জন-বক্তৃতা দেন যেখানে সমাজের সকল গোষ্ঠীর মানুষ যোগ দেয়। তিনি অশোকা বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি বিশেষভাবে আয়োজিত ক্লাশ পরিচালনা করেন যেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ও শিক্ষকগণ প্রবল আগ্রহ নিয়ে অংশগ্রহণ করেন। বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ইউনূস সোশ্যাল বিজনেস সেন্টার প্রতিষ্ঠার স্মারক চিহ্ন হিসেবে তিনি ক্যাম্পাসে একটি বৃক্ষ রোপণ করেন।

এর পূর্বে ভারতে ফরাসী রাষ্ট্রদূত মি. আলেকজান্দ্রে জিগলার তাঁর বাসভবনে প্রফেসর ইউনূসের সম্মানে একটি নৈশভোজের আয়োজন করেন। রাষ্ট্রদূত ভারতে কর্মরত প্রায় ৫০টি নেতৃস্থানীয় ফরাসী ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এবং সামাজিক ব্যবসায়ে আগ্রহী ভারতের বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহীদের সাথে প্রফেসর ইউনূসের পরিচয় করিয়ে দেন। তাঁর বক্তব্যে প্রফেসর ইউনূস ফান্স ও ভারতে কর্মরত বৃহৎ সামাজিক ব্যবসা কোম্পানীগুলোর কর্মকান্ডের সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কেও উপস্থিত অংশগ্রহণকারীদের অবহিত করেন। তিনি তাঁদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবও দেন।

ফরাসী রাষ্ট্রদূত ২০২৪ সালের অলিম্পিক প্যারিসে নিয়ে আসায় প্রফেসর ইউনূসের গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকার জন্য তাঁকে ধন্যবাদ দেন এবং প্যারিস নগরীর সম্মানসূচক নাগরিকত্ব গ্রহণ করার জন্য তাঁকে অভিনন্দন জানান। তিনি বলেন যে, প্রফেসর ইউনূস যোগদান করতে সম্মত হলে তিনি সামাজিক ব্যবসায়ে আগ্রহী ফ্রান্স ও ভারতের ব্যবসায়ী নেতাদের নিয়ে প্রতি বছর এ ধরনের একটি সমাবেশের আয়োজন করতে চান।